চট্টগ্রাম আদালতে আসামি-বাদীর বিয়ে ১৭ আগস্ট


aasohan প্রকাশের সময় : অগাস্ট ১০, ২০২২, ৪:৪৩ অপরাহ্ন /
চট্টগ্রাম আদালতে আসামি-বাদীর বিয়ে ১৭ আগস্ট

আগামী ১৭ আগস্ট ধর্ষণ মামলার বাদী ও আসামির বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করেছেন চট্টগ্রাম আদালত। বাদী ও আসামির সমঝোতার ভিত্তিতে সোমবার এ তারিখ নির্ধারণ করেন চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভূঞা।

ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম জেলা পিপি শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন, আসামি সাগরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছিলেন বাদী। আদালতে উপস্থিত হয়ে বাদী জানান, সাগরের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। প্রেমের সম্পর্কের কারণে একসঙ্গে ছিলেন তারা। কিন্তু সাগর কাবিন করেনি। ধর্ষণ করেছে এ অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করেছিলেন। তখন আসামি আদালতে জানান, ওই নারীকে বিয়ে করবেন তিনি।

পিপি বলেন, আমরা মানবিক দিক বিবেচনা করেছি। কারণ তাদের দেড় বছরের একটি সন্তান আছে। তার তো বাবার পরিচয় লাগবে। সে কারণে আদালতকে অনুরোধ করলাম, যেহেতু আসামি ও বাদী বিয়ে করতে চাচ্ছেন, তাদের বিয়ে করার অনুমতি দেওয়া হোক। কাবিন ও ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক কার্যাদি সম্পন্ন হওয়ার পরে জামিনের বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য। সেই মোতাবেক আজ বিয়ের ও জামিন শুনানির দিন ধার্য ছিল। কথা ছিল উভয় পক্ষের অভিভাবকরা আসবেন। আসামির বাড়ি বরিশাল। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও অন্যান্য কারণে তারা আসতে পারেননি। তাই  আসামি পক্ষ থেকে সময় চাওয়া হয়েছে। আসামি সাগর আজকেও আদালতে বলেছেন তিনি বিয়ে করবেন।

তিনি বলেন, আজ বাদী ও আসামিকে আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছিল। তারা জানিয়েছেন, বিয়ে করতে রাজি আছেন। দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভূঞার আদালত আগামী ১৭ আগস্ট বিয়ের তারিখ ধার্য করেন। আদালত প্রাঙ্গণে বিয়ে হবে। বিয়ের পর জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আজকের শুনানি শেষে আসামি সাগরকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

তিনি বলেন, বিয়ের পর আদালত বিবেচনা করবেন আসামিকে জামিন দেবেন কি না। তবে জামিনের পূর্বশর্ত বিয়ে নয়।  সাজা দেওয়াও আমাদের মূল্য লক্ষ্য নয়। সমঝোতার মাধ্যমে যদি একটি বন্ধন তৈরি করতে পারি, একটি শিশু যেন তার মা-বাবার পরিচয় পায়, সেটাই আমাদের চাওয়া। এটা আমাদের সামাজিক দায়িত্ব।

জানা গেছে, এর আগে হুজুর ডেকে বিয়ে হয়েছিল তাদের। কিন্তু কোনো রেজিস্ট্রেশন করা হয়নি। এরপর গর্ভে আসে সন্তান। কিন্তু হঠাৎ করে বিয়ের কথা অস্বীকার করেন সাগর। এরপর গত জুলাই মাসে আদালতে মামলার আবেদন করলে হাটহাজারী থানায় এজাহার নেওয়া নির্দেশ দেন আদালত। সেই মামলায় গত ২০ জুলাই থেকে কারাগারে আছেন সাগর।